×
ব্রেকিং নিউজ :
দিনাজপুরে গোর-এ-শহীদ ঈদগাহ মাঠের নিরাপত্তায় র‌্যাব কাল ঈদ: শেষ সময়ে পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে বাড়ি ফিরছেন মানুষ বরিশালে কোরবানির হাট ও পশুর বর্জ্য অপসারণ তদারকিতে মনিটরিং টিম গঠন কুমিল্লায় কেন্দ্রীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮টায় নোয়াখালীর কবিরহাটে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেলো সাড়ে ৩ হাজার পরিবার ভারি বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা ঈদের দিন ঢাকাসহ চার বিভাগে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোদি রাজধানীতে কোরবানির পশু বর্জ্য অপসারণে প্রস্তুত সাড়ে ১৯ হাজার কর্মী ঈদ উপলক্ষে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা বিনিময় আগামীকাল
  • প্রকাশিত : ২০২৩-০৩-২১
  • ২২১ বার পঠিত
  • নিজস্ব প্রতিবেদক

ইকোলজি বান্ধব নিরাপদ সবজি উৎপাদন ও বাজারজাত করণ শীর্ষক ভ্যালু চেইন উপ-প্রকল্পের আওতায় মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল ঢেঙ্গাপাড়া গ্রামে এক কৃষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।  
স্থানীয় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ”জাকস ফাউন্ডেশন” পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় নিরাপদ উচ্চ মূল্যের সবজি ( বীট রুট) উৎপাদন ও প্রদর্শনী বিষয়ে ওই কৃষক মাঠ দিবসের আয়োজন করে। জাকস ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক (প্রোগ্রাম) ওবায়দুল ইসলাম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। কৃষক মাঠ দিবসে ইকোলজি বান্ধব নিরাপদ সবজি উৎপাদন ও বাজারজাত করণ শীর্ষক ভ্যালু চেইন নিয়ে  নানা বিষয় তুলে ধরে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পাঁচবিবি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (অতিরিক্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন। বিশেষ অতিথি ছিলেন জাকস ফাউন্ডেশনের সিনিয়র পরিচালক মো: রুহুল আমিন, সহকারী সমন্বয়কারী সিদ্দিকুল বাশার, ধলাহার-১ এর শাখা ব্যবস্থাপক মো: হাবিবুর রহমান, ভ্যালু চেইন প্রকল্পের ফ্যাসিলিটেটর মেহেদুল হাসান , সহকারী ফ্যাসিলিটেটর সুরুজ্জামান ও কৃষক সোনা মিয়া প্রমূখ।  পাঁচবিবি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (অতিরিক্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ক্যান্সার প্রতিরোধে বীটের জুস অত্যন্ত উপকারী। হাড় মজবুত ও দৃষ্টিশক্তির উন্নয়নসহ শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এ ছাড়াও শরীরের রক্ত স্বল্পতা দূর করতে  গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বীট রুট সবজি। বীট রুট চাষি সোনা মিয়া জানান,  ইকোলজি বান্ধব নিরাপদ সবজি উৎপাদন প্রকল্পের আওতায় মাটি পরীক্ষার মাধ্যমে জৈব্য সার হিসেবে কেঁচো সার ব্যবহার ও পোকা মাকড় দমনে হলুদ ফাঁদ, ট্রাইকোডার্মা ফাঁদ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ১০ শতাংশ জমিতে এবার প্রথম বীটরুট সবজি চাষ করেছি। এতে উৎপাদন খরচ কম হওয়ায় তুলনামূলক লাভ বেশি হয়েছে। ইতোমধ্যে ৩২০ কেজি বীটরুট ১৬ হাজার টাকা বিক্রি করেছেন এবং জমিকে এখনও ৭/৮ মণ বীটরুট রয়েছে যা প্রায় ত্রিশ হাজার টাকার মতো বিক্রি হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি। নিরাপদ সবজি উৎপাদনে  প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে কৃষকদের  কারিগরি সহায়তা  ও ঋণ সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে বলে জানান, জাকস ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক (প্রোগ্রাম) ওবায়দুল ইসলাম। 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
ফেসবুকে আমরা...
#
ক্যালেন্ডার...

Sun
Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat